ভারত-চীন সী’মা’ন্তে উত্তে’জ’নার মধ্যেই কা’শ্মীরে আক্র’মণা’ত্মক পাকিস্তান

লাদাখে দু’প’ক্ষের হা’তাহা’তি একেবারে গো’লাগু’লির জায়গায় পৌঁছে গেছে। এই পরি’স্থি’তিতে এক সেনা অফিসারসহ দুজন সে’না সদ’স্য শহীদ হয়েছে। ভারতীয় মিডিয়া বলছে, সোমবার রাতে ব্যাপক এ উত্তে’জনা ছড়ায় ভারত-চীন সী’মা’ন্তে।

এই ঘট’নার পরেই দেশটির প্রধানমন্ত্রী মোদীর নে’তৃত্বে শুরু হয়েছে জোর বৈ’ঠক। এই সুযোগে লাগা’তার সং’ঘ’র্ষ বি’রতি চু’ক্তি ল’ঙ্ঘন শুরু করেছে পাকি’স্তান।

জ’ম্মু-কা’শ্মী’রের নৌসেরা সে’ক্ট’রে লাগা’তার শে’লিং পাকিস্তানের সে’নার। সী’মা’ন্তের এপারে থাকা ভার’তীয় সে’না ছাউনি ও সী’মা’ন্ত সং’লগ্ন গ্রাম’গুলো’কে টা’র্গেট আ’ক্র’মণা’ত্মক ভাবে শেলিং করছে।

য’দিও একেবারে খোলা হাতে পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় সে’নাও। দু’প’ক্ষের গো’লা’গু’লিতে ন’তুন করে উ’ত্তে’জনা ছড়িয়েছে। যদিও এখ’নও পর্য’ন্ত ক্ষ’য়’ক্ষ’তির কোনও খবর পাওয়া যায়নি। হতা’হ’তেরও খবর পাওয়া যায়নি।

প্রস’ঙ্গত, ভারত সী’মা’ন্তে গত কয়েকদিন ধরে লাগো’য়া গ্রা’মগু’লোকে লক্ষ্য করে ক্র’মাগত পাকি’স্তানি সে’না ম’র্টার হা’মলা চালিয়ে যাচ্ছে বলে সেনা সূ’ত্রে খবর। এর ফলে স্থানীয় বাসি’ন্দাদের মধ্যে উ’দ্বেগ ছড়াচ্ছে।

গত কয়েকদিন ধরেই লাগাতার মর্টার হাম’লা চলছে বলে জা’না ঘে’ছে। চল’ছে গু’লি বর্ষ’ণও।

এই হাম’লার ফলে উরি সে’ক্ট’রের বাটগ্রান গ্রামে এক না’রীর মৃ’ত্যু হয়েছে। তিন ব্য’ক্তি গু’রুত’র আ’হত হয়েছেন। নি’য়ন্ত্রণ’রেখা একেবারে কাছে থাকা ভার’তীয় প্রা’ন্তের শেষ গ্রাম হল এই বাটগ্রান।

গত দু সপ্তা’হ ধরে পাকিস্তান উরির হাজি’পের ও কম’লকোট সে’ক্টরে ক্রমা’গত হা’মলা চালিয়েছে। সী’মা’ন্ত’বর্তী গ্রা’ম’গু’লি, যেমন ‘চুরু’নদা, বাটগ্রান, হা’তলা’ঙ্গা, মোথাল, সাহুরা, সিলি’কোটে, বালা’কোট, নাম্ব’লা, গর’কোটে ও উরিতে আ’তঙ্ক ছড়িয়েছে।

এদিকে ভার’তীয় প্র’তির’ক্ষাম’ন্ত্রক আগেই জানিয়েছিল গত ছয় মাসে পাকিস্তানের সেনা ভার’ত সী’মা’ন্তে

২০০০ বারে’রও বেশি সময় হা’মলা চালিয়েছে। বিনা প্ররোচনাতেই এই হা’মলা চলেছে বলে খবর।”